গৌরবের ১৬ ডিসেম্বর পালিত হলে মালয়েশিয়ায়

0
255

রফিকুল ইসলাম (মালয়েশিয়া):-

১৬ ই ডিসেম্বর। মহান বিজয় দিবস। এই দিনটি জাতির জন্য পরম গৌরবের। ১৯৭১ সালের এই দিনে দীর্ঘ নয় মাসের  রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধ শেষে ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে আত্মসমর্পণ করেছিল পাক হানাদার বাহিনী।অবসান হয় নয় মাস ব্যাপী রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের। চূড়ান্ত বিজয়ের মধ্য দিয়ে অভ্যুদয় ঘটে বাংগালির সাধীন রাষ্ট্র বাংলাদেশের। বিজয়ের অনূভুতি সবসময়ই আনন্দের। আমরা গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করি এই দিনটি এবং  মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের। বাংলার সন্তানরা যে যেখানেই থাকুক গভীর শ্রদ্ধাভরে এই দিনটি কে তারা মনে করবেই। ঠিক সেরকমই  দেশপ্রেমের এক গভীর আত্মপ্রকাশ ঘটে আসছে বছর বছর মালয়েশিয়া প্রবাসিদের কর্মকর্তাদের মধ্যে ও। প্রতি বছরের মত আজও মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়। সকাল সাড়ে ৯টায় বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতীয় সংগীত গেয়ে পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়। লাল-সবুজের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন রাষ্ট্রদূত মহ. শহিদুল ইসলাম। পতাকা উত্তোলন শেষে বীর শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন দূতাবাসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. সোহরাব হোসেন ভূঁইয়া।

রাষ্ট্রদূত মহ. শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও শ্রম কাউন্সিলর (অতিরিক্ত সচিব) মো. সায়েদুল ইসলামের সঞ্চালনায় সভায় রাষ্ট্রপতির বাণী পাঠ করেন এয়ার কমডোর মো. হুমায়ূন কবির, প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন দূতালয় প্রধান ওয়াহিদা আহমেদ, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন পাসপোর্ট ও ভিসা শাখার প্রধান ফার্স্ট সেক্রেটারি মো. মশিউর রহমান তালুকদার এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন প্রথম সচিব (বাণিজ্য) মো. রাজিবুল আহসান।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাইকমিশনার মুহ. শহিদুল ইসলাম বলেন, মহান বিজয় দিবস জাতীয় জীবনে এক অনন্য গৌরবময় দিন। বিজয়ের এই মহান দিনে সেইসব অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গভীর শ্রদ্ধা জানাই, যারা দেশের স্বাধীনতা অর্জনে জীবন উৎসর্গ করেছেন। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করেন। সেইসঙ্গে তিনি জাতীয় চার নেতাসহ মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শ্রদ্ধা জানান। হাইকমিশনার বিজয় দিবসে প্রবাসী বাংলাদেশিদের আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।

আরো উপস্থিত ছিলেন- বীর মুক্তিযোদ্ধা শওকত হোসেন পান্না, হাইকমিশনের প্রথম সচিব (কনস্যুলার) মো. মাসুদ হোসাইন, শ্রম শাখার প্রথম সচিব মো. হেদায়েতুল ইসলাম মন্ডল, প্রথম সচিব তাহমিনা ইয়াসমীন, শ্রম শাখার দ্বিতীয় সচিব মো. ফরিদ আহমদ, দাতু আকতার হোসেন, অগ্রণী ব্যাংক এর সিও লুতফর রহমান, ন্যাশনাল বাংক এর সিও আক্তার হোসেন। এছাড়া মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি মকবুল হোসেন মুকতা, আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ওয়াহিদুর রহমান অহিদ, রাশেদ বাদল, মনিরুজ্জামান মনির, শফিক চৌধুরী, শাখাওয়াত হক জোসেফ, যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মনসুর আল বাশার সোহেল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বাবুল হাসান, জালাল উদ্দিন সেলিম, শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি শাহ আলম হাওলাদার ,মনির দেওয়ান, আরিফুল ইসলাম এবং সুশান্ত সহ মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠন, সামাজিক ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ ও কমিশনের কর্মকর্তাবৃন্দ আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here