নানান উপকারে রাতে ঘুমানোর পূর্বে এক গ্লাস পানি পান করুন!

0
389

 একাধিক শারীরিক সমস্যার কারণ ‘পানিশূণ্যত’। তাই রাতে ঘুমোতে যাওয়া পূর্বে বেশি নয়, এক গ্লাস পানি খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকরা। এমনটা করা যদি শুরু করেন, তাহলে যে শুধু দেহের ভেতরে চাহিদা মিটবে, তাই নয়। সেই সঙ্গে আরও বেশ কিছু শারীরিক উপকার মিলবে!

রাতে ঘুমানোর পূর্বে পানি পানের উপকারীতা জেনে নিন-

১. মানসিক অবসাদ দূর হয়: রাতে ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে পানি পান না করলে দেহের ভেতরে এত মাত্রায় পানির ঘাটতি দেখা দেয় যে, যা ডিপ্রেশনের মতো সমস্যাকে আমন্ত্রণ জানিয়ে নিয়ে আসে। সেই সঙ্গে যুক্ত হয় অ্যাংজাইটিও। তাই এমন ঘটনা যাতে না ঘটে তা সুনিশ্চিত করতেই ঘুমতে যাওয়ার পূর্বে এক গ্লাস পানি খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকেরা। প্রসঙ্গত, এমন অভ্যাস করলে মন-মেজাজ তো চাঙ্গা হয়ে ওঠেই, সেই সঙ্গে ঘুমও বেশ ভল মতই হয়।

২. রক্ত চলাচলের উন্নতি ঘটে: রাতে ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে পানি করলে সারা শরীরে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের সরবরাহ বেড়ে যায়। ফলে দেহের ভাইটাল অর্গ্যানদের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে ধমনীতে জমে থাকা বর্জ্য পদার্থও শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। ফলে নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা হ্রাস পায়।

৩. ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়: বেশ কিছু কেস স্টাডির পর একথা প্রমাণিত হয়েছে যে, রাতে ঘুমানোর পূর্বে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি খেলে ত্বকের শুষ্কতা দূর হয়। ফিরে আসে আদ্রতা। ফলে স্বাভাবিকভাবেই স্কিন উজ্জ্বল হয়ে ওঠে। সেই সঙ্গে বলিরেখাও কমতে শুরু করে।

৪. কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়: বেশ কিছু স্টাডিতে দেখা গেছে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে কম করে এক গ্লাস পানি পান করলে পেশি এবং জয়েন্টের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে, সেই সঙ্গে এনার্জি লেভেলও বাড়ে। শুধু তাই নয়, দেহের ভেতরে পানির ঘাটতি মেটার কারণে গুরুত্বপূর্ণ কিছু হরমোনের ক্ষরণও ঠিক মতো হতে শুরু হয়। ফলে সার্বিকভাবে শরীর চাঙ্গা হয়ে উঠতে যে সময় লাগে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here