শীতে হয়ে উঠুন ত্বক সচেতন

0
239
মডেলঃ তাসমিয়াহ রহমান, মেকআপ এবং কোরিওগ্রাফিঃ ইয়াম্মি নুসরাত, ফটোগ্রাফিঃ ইভান গালিব

ইভান গালিব, আনন্দ বিনোদন : সারাদিন রোদ আর সন্ধ্যার পর নেমে আসে ঠাণ্ডা, এ যেন শীতের আগমন বার্তা !আবহাওয়ার সাথে সাথে পরিবর্তন হচ্ছে ত্বকেরও। শীতে ত্বক স্পর্শকাতর হয়ে যায়, সাথে দেখা দেয় নানা রকম সমস্যা যেমন শুষ্কতা অন্যতম।গরমে যে সকল প্রসাধনী ব্যবহার করা হয় তাও বদলে যায় শীতকালে। তাই করতে হবে শীতের পরিপূর্ণ রূপচর্চা। শীতে ধুলোবালি অনেক বেড়ে যায় তাই যতটা সম্ভব ত্বক পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করতে হবে। শীতকালে ত্বক কখনো একটু অদ্ভুত আচরণ করে, মুখের টি-জোন অর্থাৎ নাক-কপালের অংশ ছাড়া বাকি জায়গা শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। তাই ত্বকের ধরন বুঝে নিতে হবে বাড়তি যত্ন। যদি ত্বকে মিশ্র ভাব দেখা দেয় তবে সাধারণত যে ফেইসওয়াশ গরমকালে ব্যবহার করেছেন সেটাই রাখুন। তবে তা শুধু টি-জোনটুকুর জন্যই। বাকি শুষ্ক জায়গায় সাধারণ ফেইসওয়াশ বা ফোমিং ক্লেনজার দিয়ে ধোবেন।

একটু বেশি শুষ্কতা দেখা দিলে ক্রিম ক্লেনজার, ক্লেনজিং মিল্ক অথবা গ্লিসারিন বার ব্যবহার করুন। প্রতিদিন বাইরে বের হওয়ার আগে দেখে নিন আপনার সঙ্গে ক্লেনজিং ওয়াইপস বা ওয়েট টিস্যু আছে কি না। প্রতিদিন মাইল্ড স্ক্রাব ব্যবহার করতে ভুলবেন না। তৈলাক্ত ত্বকে জেল বা হালকা ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন, যেগুলোতে তেলের পরিমাণ কম, পানির পরিমাণ বেশি। 

শুষ্ক ত্বকের ক্ষেত্রে ভারী ময়েশ্চারাইজার লাগানো উচিত। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত কড়া রোদ থাকে, এ কারণে সানস্ক্রিন লোশন অবশ্যই ব্যবহার করতে ভুলবেন না। কমপক্ষে ৫০+ এসপিএফ আছে এমন সানস্ক্রিন ব্যবহার করবেন। ৩/৪ ঘণ্টা পরপর মুখ মুছে নিয়ে নতুন করে লাগাতে হবে। কারণ, সানস্ক্রিন ৩/৪ ঘণ্টার বেশি কাজ করে না।

যদি মেকআপ করেন তবে অবশ্যই তা ভালোভাবে পরিষ্কার করতে ভুলবেন না। মেকআপ তুলতে বেবী অয়েল বা মেকআপ রিমুভার ব্যবহার করুন এবং শেষে হালকা গরম পানি ও ফেইসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার লাগান।

মডেলঃ তাসমিয়াহ রহমান, মেকআপ এবং কোরিওগ্রাফিঃ ইয়াম্মি নুসরাত, ফটোগ্রাফিঃ ইভান গালিব

 রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ভালো কোন নাইট ক্রিম অথবা এর বদলে আমন্ড অয়েল লাগাতে পারেন। আমন্ড অয়েল ত্বক ময়েশ্চারাইজ যেমন করবে সাথে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ানো, বয়সের ভাঁজ কমানো, ব্রণ অথবা দাগ দূর করতেও সাহায্য করবে।

চুলের ক্ষেত্রেও দেখা যায় শুষ্কতা। অনেকের চুল উজ্জ্বলতা হারিয়ে ফেলে। একটু রুক্ষ, শক্ত ভাব এসে পড়ে চুলে। 

 কলার সঙ্গে পেঁপে মিশিয়ে ভালোভাবে পেস্ট করে লাগাতে পারেন অথবা অলিভ অয়েল আর মধু মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে নিন। ২০-২৫ মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন। এ সময় খুশকিও খুব বেশি হয়। চুল সবসময় পরিষ্কার রাখুন। অ্যান্টি ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু লাগাতে পারেন।

 তৈলাক্ত চুলের জন্য, আধাকাপ মেয়োনিজ হালকা গরম করে নিন। মাথায় লাগিয়ে ৩০-৩৫ মিনিট রাখুন। ভালোমতো শ্যাম্পু করুন। চমৎকার সিল্কি ভাব পাবেন। তেলতেল ভাব চলে যাবে। চুল ধোয়ার শেষ পর্যায়ে পানির সঙ্গে দুই-তিন চামচ ভিনেগার মিশিয়ে চুল ধুয়ে নিতে পারেন। তৈলাক্ত চুলে অতিরিক্ত তেল ভাব চলে যাবে।

ধুলোবালিটা এ সময় যেন একটু বেশিই থাকে। এ কারণে নিয়মিত হাত-পায়ের ও যত্ন নিতে হবে। খুব সহজে বাসায়ই পেডিকিওর-মেনিকিওর করে নিতে পারেন।

বড় কোন পাত্রে হালকা গরম পানি নিয়ে তাতে সামান্য অলিভ অয়েল এবং দুই চামচ পরিমাণ লবণ মিশিয়ে তাতে হাত-পা ৩০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। পানি পালটে আবার পানি নিয়ে তাতে শ্যাম্পু মিশিয়ে ১০ মিনিট হাত-পা ভিজিয়ে রাখুন তারপর ব্রাশ অথবা পিউবিক স্টোন দিয়ে নখের চারপাশ, পায়ের গোড়ালি পরিষ্কার করে নিন। সবশেষে পরিষ্কার পানিতে হাত-পা দুয়ে মুছে নিন। এরপর অবশ্যই লোশন ব্যবহার করবেন। আপনার যদি পা ফাঁটার লক্ষণ দেখা দেয় তবে নিয়মিত পায়ের গোড়ালিতে ভেসলিন বা অলিভ অয়েল ম্যাসাজ করুন। শীতের পরিপূর্ণ রূপচর্চা করার ক্ষেত্রে হাত ও পায়ের দিকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে। এরকম সহজ কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করে আপনি খুব সহজেই শীতের পরিপূর্ণ রূপচর্চা করতে পারেন এবং পেতে পারেন সজিব-সতেজ ত্বক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here