হ্যাকড আতঙ্কে শোবিজ অঙ্গন

0
239

নিউজ ডেস্ক:- জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক সাধারণ মানুষের পাশাপাশি শোবিজ তারকারাও ফেসবুক ব্যবহার করে থাকেন। তবে গত একবছরে বেশ কয়েকজন তারকার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট পর পর হ্যাক হতে দেখা যায়। গত বছর কয়েক কোটি অ্যাকাউন্ট হ্যাক হওয়ার বিষয় নিশ্চিত করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। এসব অ্যাকাউন্ট থেকে ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করে নিয়েছে সাইবার দুর্বৃত্তরা।

সম্প্রতি ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ফেসবুক থেকে মোট ২ কোটি ৯০ লাখ অ্যাকাউন্টের তথ্য বেহাত হয়েছে। নিত্য-নতুন প্রতারণার ফাঁদ পেতে অনলাইন জগতে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে হ্যাকাররা। রেহাই পাচ্ছে না তারকাদের ফেসবুক আইডিও।

প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা বলছেন, ফেসবুক থেকে হ্যাক হওয়া তথ্য খুবই মূল্যবান। ফেসবুক হ্যাক করে তথ্য হাতিয়ে নিতে পারলে তা থেকে অর্থ আয় করে সাইবার দুর্বৃত্তরা। এসব তথ্য তারা ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করে দেয়। এ পর্যন্ত দু’বার হ্যাক হয়েছে চিত্রনায়িকা বুবলীর ফেসবুক আইডি। এছাড়া অভিনয়শিল্পী ও সঞ্চালক মিথিলা, চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ, আনিসুর রহমান মিলন, চিত্রনায়িকা পপি, অপু বিশ্বাস, আইরিন, সংগীতশিল্পী কনকচাঁপা, হাবিব ওয়াহিদ, তাহসান, মিনার রহমান, চিরকুট ব্যান্ডের শারমীন সুলতানা সুমী, নির্মাতা অনিমেষ আইচ প্রমুখ তারকারও ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে।

হ্যাকড হয় মিলনের ফেসবুক আইডি। আর তিনি যখন আইডিটি রিকোভার করার জন্য চেষ্টা করছিলেন তখন জানা যায় সিঙ্গাপুরের আশপাশের কোনও জায়গা থেকে আইডিটি হ্যাকড করা হয়েছে। অভিনেতা মিলন বলেন, আইডি হ্যাকড হওয়া নিয়ে আইনি সহায়তা নেবেন বলে জানান এই অভিনেতা।

চিত্রনায়িকা পপি বলেন, আমি দু’বার ‘ফেসবুক হ্যাক’-এর শিকার হয়েছি। নতুন আইডি খুলছি না। রীতিমতো এ বিষয়টি নিয়ে এখন আতঙ্কে থাকতে হয়। এটা যারা করছে তাদের শাস্তি হওয়া উচিত।

চিত্রনায়িকা আইরিন সুলতানা বলেন, আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক করার পর নানান ঝামেলা পোহাতে হয়েছে। হ্যাকাররা, ফেসবুক হ্যাক করার পর আমার ফেসবুকের তালিকায় থাকা বিভিন্ন পরিচিতজনের কাছে বিভিন্ন অঙ্কের টাকা চেয়েছে। এরপর আমি কলাবাগান থানায় এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেছি।

এ রকম প্রতারক চক্রের আতঙ্কে থাকতে হচ্ছে অনেক তারকাকে। গত বছরে মোট ৩০ জন শোবিজ তারকার ফেসবুক আইডি বিভিন্ন সময়ে হ্যাক করে প্রতারকচক্র। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সাইবার অপরাধ ইউনিটের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম বলেন, ফেসবুক আইডি হ্যাক করা অবশ্যই বড় অপরাধ। সেক্ষেত্রে আমাদের কাছে এসে যদি কেউ অভিযোগ করেন, মামলা করেন তাহলে এসব সাইবার দুর্বৃত্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া যেতে পারে।

সাইবার ক্রাইম অ্যাওয়ারনেস ফাউন্ডেশনের সভাপতি কাজী মুস্তাফিজ বলেন, অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তার জন্য টু ফ্যাক্টর অথেনটিকেশনসহ সিকিউরিটি সেটিংসের বিষয়ে সচেতন থাকা উচিত। সহজে অনুমান করা যায় এমন পাসওয়ার্ড ব্যবহার না করাই উত্তম। পাসওয়ার্ডে ছোট-বড় হাতের অক্ষর, সংখ্যা, সাংকেতিক চিহ্ন ইত্যাদি মিলিয়ে ব্যবহার করা উচিত। এছাড়া নিজের ডিভাইস ছাড়া সাইবার ক্যাফে বা অন্য কারো ডিভাইসে লগইন করা উচিত নয়। অন্যের কম্পিউটারে কী-লগারসহ বিভিন্ন ক্ষতিকর সফটওয়্যারের মাধ্যমে তথ্য চুরির ঝুঁকি থাকে। প্রয়োজনে নিরাপত্তার বিষয়গুলো ভালো জানেন এমন কারো সহযোগিতা নেয়া যেতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here