দুজনেই ভাবছেন নির্মাতাদের ‘সম্মান’ ও ‘সম্মানী’ ফিরিয়ে আনার

0
217

 

সালেহ আহমেদ মনা:- ডিরেক্টরস গিল্ডের নবনির্বাচিত সভাপতি হলেন সালাহউদ্দীন লাভলু। এটাই তার প্রথম নির্বাচন ও জয়। অন্যদিকে গতবারের মতো এবারও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হলেন এসএ হক অলিক। ফল ঘোষণার পরপরই বিএফডিসি প্রাঙ্গণে আলাপ হয় বিজয়ী দুজনের সঙ্গে। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তারা জানান জয়ের অনুভূতি ও প্রতিশ্রুতির কথা । কাকতাল হলেও সত্যি, দুজনেই আলাদাভাবে বললেন প্রায় একই কথা। দুজনেরই ইচ্ছে নির্মাতাদের হারিয়ে যাওয়া ‘সম্মান’ ও ‘সম্মানী’ফিরিয়ে আনার।

সালাহউদ্দীন লাভলু জয়ের অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে বললেন, ‘জীবনে প্রথম কোনও নির্বাচনে অংশ নিয়ে জিতলাম। এই জয়ের আনন্দ অনেক। তবে চাপও আছে। কারণ, এটা ভোটের জয়। ভোটারদের প্রত্যাশার চাপ অনেক। টেরপাচ্ছি।’ ভোটারদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘যারা আমাকে নির্বাচিত করেছেন, সবার কাছে কৃতজ্ঞ আমি। এটুকু বুঝলাম, এখন থেকে আমাকে আরও বেশি দায়িত্ববান হতে হবে। এখন আর নিজের কথা ভাবার সুযোগ নেই। ভোটারদের তথা ডিরেক্টরদের স্বার্থ নিয়ে ভাবতে হবে। কাজ করতে হবে। জয়ের পর ভেতরে ভেতরে এই অনুভূতিটাইকাজকরছে।’ এই জয়ের মুহূর্তে কোনও প্রতিশ্রুতি দেবেন? জবাবে সালাহউদ্দীন লাভলু বলেন, ‘খুব বড় প্রতিশ্রুতি এখনই করতে চাই না। আমার প্রথম ইচ্ছা পরিচালকদের সম্মান পুনরুদ্ধার করা। কারণ, পরিচালক হচ্ছেন ক্যাপ্টেন অব দ্য শিপ। অথচ এখন এমন অবস্থা হয়েছে যে, মনে হয় পরিচালক ম্যানেজার অব দ্য শিপ! এই বিষয়টি আমাকে খুবই পোড়ায়। আমার প্রথম চেষ্টা থাকবে পরিচালকদের হারিয়ে যাওয়া মর্যাদাটাকে ফিরিয়ে আনার।’ এদিকে এসএ হক অলিক বললেন, ‘আবারও নির্বাচিত হয়েছি। এটা নিশ্চয়ই আনন্দের। আমার নতুন সভাপতি লাভলু ভাইকে শুভেচ্ছা জানাই। আশা করছি গতবারের ধারাবাহিকতায় এবার আমরা আরও বেশি বেশি কাজ করতে পারবো। আমাকে যারা ভোট দিয়ে আবারও নির্বাচিত করেছেন, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশের ভাষা নেই।’ প্রতিশ্রুতি প্রসঙ্গে অলিক বললেন, ‘প্রথমেই চেষ্টা করবো নির্মাতাদের সম্মান ফেরানোর। আমি চাই একজন নির্মাতা যেন দিনশেষে সম্মানজনক সম্মানী নিয়ে ঘরে ফিরতে পারেন। আমাদের কাজের পরিবেশটা নিয়ে অনেক ভাবনারবিষয়আছে।’ অলিক আরও বললেন, ‘আমাদের দেশে অনেক মেধাবী নির্মাতা আছেন, নানা কারণে যারা কাজ করার সুযোগ পাচ্ছেন না। কাজ পেলেও করার মতো পরিবেশ পাচ্ছেন না। কাজ করলেও প্রাপ্য সম্মানী পান না অনেকে। এমন নানা প্রতিবন্ধকতা রয়েছে আমাদের। এবার আমার ইচ্ছে লাভলু ভাইসহ সবার সমর্থন নিয়ে এই বিষয়গুলো ঠিক করার।’
একনজরে ডিরেক্টরস গিল্ড নির্বাচন- ২০১৮:
সভাপতি: সালাহউদ্দীন লাভলু (২৫৯)
সহ-সভাপতি: কচি খন্দকার (২৬৯), শহীদ রায়হান (২৩৬) বদরুল আনাম সৌদ (২০৫)
সাধারণ সম্পাদক: এস হক অলিক (২০২)
যুগ্ম -সাধারণ সম্পাদক: হৃদি হক (৩১৩), ফরিদুল হাসান (২০১)
সাংগঠনিক সম্পাদক: তুহিন হোসেন (২৪৯)
অর্থ সম্পাদক: সাজ্জাদ সনি (২৪৬)
প্রচার সম্পাদক: পিকলু চৌধুরী (২৬৮)
কার্য নির্বাহী পরিষদ সদস্য- গাজী রাকায়েত (৩১৮), রাশেদা আক্তার লাজুক (২৮২), শেখ রুনা (১৮২), শহীদ-উন-নবী (১৭৬), সাজ্জাদ সুমন (১৭৫) ও মাহমুদ দিদার (১৭৪)। শিহাব শাহীন (২৬১), প্রীতি দত্ত (২৪৫), ফেরারী অমিত (২০৮), মারুফ মিঠু (১৮৩),

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here