ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে সালমান ফয়সালের যাত্রা

0
37

সালমান ফয়সাল, মেধাবী ও বুদ্ধিদীপ্ত একজন বেসরকারি কর্মকর্তা। ইন্টারনেট সেবা ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান “Linkus” এর জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত। শুরুটা খেলার মাঠ, শোবিজ হলেও এখন রাজত্ব করছেন ডিজিটাল প্লাটফর্মে। তরুণদের অইকন সালমান ফয়সাল। সেই সফলতার গল্পগুলো শোনার জন্যই আনন্দ বিনোদনের সাথে সালমান ফয়সালের কথোপকথন। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন স্মৃতি খান-

পাঠকদের কাছে আহ্বান- আপনারা ডিজিটাল যে কোনো প্ল্যাটফর্মে অভ্যস্থ হোন। ভাল যেকোনো উদ্যেশ্যে উৎসাহিত করুন তরুণদের। কারণ এখনকার তরুণরা অনেক সম্ভাবনাময়।

আনন্দ বিনোদন: একটু ফ্ল্যশব্যাকে জানতে চাই সালমান ফয়সালের কথা এবং স্বপ্নগুলো।

সালমান ফয়সাল : ইন্টারনেটের ব্যাপকতা অনেক বিশাল। ছোটবেলায় মনে পড়ে আমরা বন্ধুদের সাথে দেশে-বিদেশে যুক্ত থাকতে অনেক কষ্ট করতাম। ইন্টারনেট ছিলো অনেকটা নাগালের বাইরে, ব্যয়বহুলও বটে। ভিডিও গেমস্, ইয়াহু, হাইফাইভ-এর সীমাবদ্ধতাতেই ছিলাম। কিন্তু তখনও ডিজিটাল দুনিয়ায় কাজ করার কোনো ইচ্ছে ছিলো না।

আনন্দ বিনোদন : ক্যারিয়ারের যাত্রা কিভাবে শুরু?

সালমান ফয়সাল : আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ থেকে গ্রাজুয়েশন শেষ করার পরপর আমি এবং আমার বন্ধু মিলে ছোট আকারে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি শুরু করি। যেটি বর্তমানে E-24 Management নামে বেশ পরিচিত। ২০১১ সালে প্রফেশনালি জয়েন করি কর্পোরেট জগতে। প্রতিষ্ঠানটি ছিলো ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড। ৭ বছর দীর্ঘ ব্যাংকিং ক্যারিয়ারে সবসময় মনে হত কোথাও নিজেকে আটকে রাখছি। হয়ত করার অনেক কিছুই আছে, একটা কিছু করি, যেটি শুধু চার দেয়ালের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে না।

আনন্দ বিনোদন : হঠাৎ করে কেন এই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মকেই বেছে নিলেন?

সালমান ফয়সাল : আমরা বাংলাদেশিরা যদি বাইরের প্রতিষ্ঠিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করি, তাহলে দেশি কোন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম কেন নয়! এছাড়াও নিজের দক্ষতা প্রমাণ করা এবং ইনোভেটিভ কাজের প্রয়াস সব সময়ই ছিলো।

আনন্দ বিনোদন : বেকারত্ব ঘোচাতে এই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম কতটুকু ভূমিকা রাখবে?

সালমান ফয়সাল : ইন্টারনেটের মাধ্যমে ই–কমার্স প্ল্যাটফর্ম কিংবা আউট-সোর্সিং করে অনেক তরুণ-তরুণীরা আত্মনির্ভর হচ্ছে। যদি সরকারি এবং বেসরকারি উদ্যোগে যথাযথ ট্রেনিং এবং ইন্টারনেটকে সারাদেশে হাতের নাগালে আনা যায়, অবশ্যই বেকারত্ব অনেক কমে আসবে।

আনন্দ বিনোদন : কাজের ক্ষেত্রে বাঁধার সম্মুখীন কেমন হচ্ছেন?

সালমান ফয়সাল

সালমান ফয়সাল : যেকোন নতুন উদ্ভাবনী চিন্তা ভাবনায় শুরুতে বাঁধা আসবে, অভিযোগ আসবে। আমি মনে করি যেখানে বাঁধা আসবে ওখানেই বুঝে নিতে হবে আপনার সুযোগও আছে। যদি প্ল্যাটফর্ম আপনার সমস্যা সমাধান করে এবং আর্থিকভাবে উপকারিতা আসে, তাহলে আগ্রহ বাড়তে থাকবে। গত এক বছর আমাদের সাথে কাজ করছে তরুণ তরুণীর সংখ্যা ১০ গুন বেড়েছে। তাহলে বলতে পারি তরুণদের কাজ করার আগ্রহ প্রবল।

আনন্দ বিনোদন : গতানুগতিক চিন্তার বাইরে নতুন কিছু ভাবছেন, যা বিশ্বের দরবারে অনুকরণীয় কিছু করা যায়?

সালমান ফয়সাল : আমি বরাবরই গতানুগতিক চিন্তার বাইরে নতুন কিছু ভাবা এবং করার ব্যপারে আশাবাদী। যে কারণে বর্তমানে চাকরির মন্দা বাজারে ব্যাংকের মত লোভনীয় চাকুরী রেখে আমি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে এসেছি। ইন্টারনেট নিয়ে আপনার শুধু দেশের ভিতরে সীমাবদ্ধ রেখে ভাবলে হবেনা। যখন কোনো প্ল্যাটফর্ম দেশ এবং দেশের বাইরে সমানভাবে তরুণদের মধ্যে আগ্রহ সৃষ্টি করবে, তখন আরো এগিয়ে নেয়া যাবে। উদাহরণ স্বরুপ : ফেইসবুক, আলিবাবা, ইন্সটাগ্রাম এদের এগিয়ে যাওয়ার পেছনে শুধু সফলতা দেখলে হবেনা। কিভাবে বাঁধা পেরিয়ে এগিয়েছে সেগুলোও আমাদের জানতে হবে।

আনন্দ বিনোদন : লিঙ্কাস বাংলাদেশের অর্থনীতিতে কতটুকু ভূমিকা রাখছে বলে আপনি মনে করেন।

সালমান ফয়সাল : ডিজিটাল-বিনোদনধর্মী লাইভ প্ল্যাটফর্ম লিঙ্কাসে বর্তমানে এক হাজার ট্যালেন্টেড ছেলে মেয়ে দেশ এবং দেশের বাইরে থেকে যুক্ত, এবং গ্রাহক সংখ্যা ৪ লাখ। যেখানে এতো তরুণদের কর্মসংস্থান হচ্ছে, যার সিংহ ভাগ বাংলাদেশি, তাহলেই বলাই চলে অর্থনীতিতে আমরা ভাল ভূমিকা রাখছি|

আনন্দ বিনোদন : আরও ১০ বছরে এই প্লাটফর্মের জনপ্রিয়তা কতটুকু আশা করেন?

সালমান ফয়সাল : আরও ১০ বছরের মধ্যে এ ধরনের লাইভ প্ল্যাটফর্মই অন্যতম যোগাযোগ এবং বিনোদনের মাধ্যম হবে। সাথে সাথে গুরুত্বপূর্ণ যেকোন কিছুই লাইভ প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে জানা হবে। লাইভ প্ল্যাটফর্ম মানে সামাজিক যোগাযোগ থেকে শুরু করে যেকোন কিছুই লাইভের মাধ্যমে পরিবেশনা করা, যেখানে রেকর্ডেড প্রোগ্রাম অথবা ইডিটিংয়ের মত মেকি ব্যাপার নেই। যা গ্রাহকরা দেখতে এবং জানতে পছন্দ করেন।

আনন্দ বিনোদন : পাঠকদের জন্য কোন বার্তা?

সালমান ফয়সাল : পাঠকদের কাছে আহ্বান- আপনারে ডিজিটাল যেকোনো প্ল্যাটফর্মে অভ্যস্থ হোন। ভালো যেকোন উদ্যেশ্যকে উৎসাহিত করুন তরুণদের। কারণ এখনকার তরুণরা অনেক সম্ভাবনাময়। পাঠাও, দারাজ এবং ফুডপান্ডা এসব ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের কারণে অনেক অনেক সার্ভিস হাতের নাগালে চলে এসেছে। এমন প্ল্যাটফর্ম যত আসবে আপনারা যত অভ্যস্ত হবেন, ততই উদ্ভাবন হবে নতুন নতুন ডিজিটাল মাধ্যম।

আনন্দ বিনোদন : যা আপনাকে উৎসাহিত করে।

সালমান ফয়সাল : ব্যাক্তিগত ভাবে আমি Jack Ma এর জীবনী ফলো করি। তিনি বলেছেন- “Look at challenges as opportunities, Do what is HARD ”…

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here